করোনা রোগী সনাক্তের পর সোনারগাঁও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের আবেগঘন স্ট্যাটাস

0
3246

নিজস্ব প্রতিবেদক, সোনারগাঁও নিউজ :

সোনারগাঁওয়ের বৈদ্যেরবাজার ইউনিয়নের হাড়িয়া চৌধুরি পাড়া গ্রামে আবু বকর সিদ্দিক নামের এক চৌদ্দ বছর বয়সী মাদ্রাসা ছাত্রের প্রথম করোনা সনাক্তের পর সোনারগাঁও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সাইদুল ইসলাম রাত ১১.১৮ মিনিটে উপজেলা প্রশাসন, সোনারগাঁও উপজেলার অফিসিয়াল ফেসবুকে একটি আবেগঘন স্ট্যাটাস দেন। এ  স্ট্যাটাসটি ইতোমধ্যে ভাইরাল হয়। এতে অনেকেই লাইক ও কমেন্ট করেছেন।

সোনারগাঁও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সাইদুল ইসলামের ফেসবুক স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হলো।

আজ আমাদের Day-1.

Novel Coronavirus এ আক্রান্ত বৈদ্যের বাজারের আবু বকর নামের ১৪ বছর বয়সের এক কিশোরকে দিয়ে আমাদের শুরু হলো। জানিনা এর শেষ কোথায়!

আবু বকর এর বাবার বুকের ভেতর থেকে ফুপিয়ে উঠা কাঁন্নার শব্দ এখনো কানে বাজছে। ছেলেকে বাঁচাবার জন্য তার মায়ের সকরুন আহাজারি, বুক ভাসানো অশ্রুজল কোন কিছুরই কোন উত্তর দিতে পারিনি আমরা।

“আমার ছেলেটাকে বাঁচান স্যার” -একজন মায়ের এমন কাকুতির কি উত্তর হয় সেটা সত্যি আমার জানা নেই। কি করে বুঝাই এ এক এমনি ভয়ংকর মহাব্যাধি,জল স্থল আর মহাকাশকে পদাবনত করা আমেরিকা ইউরোপও যে এর কাছে মাথা নত করে।

মাত্র ১৪ বছরের এই দূরন্ত ছেলেটি যে কিনা কখনো একা থাকেনি,আজ তাকে একা একটি এম্বুল্যান্স এ পাঠিয়ে দেয়া হলো কুয়েত মৌত্রি হাসপাতালে।

বুক ফেটে যাচ্ছিলো তার মায়ের, বাবার মাথায় যেনো পুরো আকাশ ভেংগে পড়ছিলো!!
আর কি কখনো এই লক্ষ্মী ছেলেটা ফিরবে ঘরে? মায়ের কাছে ধরবে বায়না? আর কি কোনদিন দেখা হবে আবু বকরের সাথে তার বাবার, তার মায়ের??
হয়ত….হয়তবা না…

হাত জোড় করে অনুরোধ করছি প্রিয় সোনারগাঁবাসী ঘরে থাকুন…সৃষ্টিকর্তাকে ডাকুন…আপনার প্রিয়জনের জন্য হলেও…

আপনার মতামত কমেন্টস করুন