চৈতী কম্পোজিটের বিরুদ্ধে প্রবাসীর জমির মাটি জোরপূর্বক কেটে নেওয়ার অভিযোগ

0
136

 

নিজস্ব প্রতিবেদক, সোনারগাঁও নিউজ :

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে চৈতী কম্পোজিট নামে একটি শিল্প কারখানার বিরুদ্ধে জোরপূর্বক এক প্রবাসীর জমির মাটি কেটে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায়  জমির মালিক প্রবাসী হাজী শাকিল রানার স্ত্রী সাদিয়া নাসরিন বাদী হয়ে সোনারগাঁও থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগে চৈতী কম্পোজিটের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবুল কালাম, পরিচালক ফাহমিদা শাবনাম চৈতীসহ কোম্পানির উর্ধতন ১৬ কর্মকর্তার নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো ১৫/১৬ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন।

অভিযোগে বলা হয়, সোনারগাঁও পৌরসভার ছোটশিলমান্দী, শ্রী নিবাসদী ও টিপরদী মৌজার বিভিন্ন দাগে ক্রয় ও পারিবারিকসুত্রে প্রায় ১৩৪ শতাংশ জমির মালিক হয়ে বিগত ১০ বছরেরও বেশি সময় ভোগ দখল করে আসছেন। জমির সীমানা স্পষ্ট করাসহ জমিতে হাজী শাকিল রানার মালিকানা সম্বলিত সাইনবোর্ডও ঝুলানো হয়।
জমির মালিক দেশে থাকাবস্থায় জমির দখল স্বত্ব ঠিক থাকলেও কাজের প্রয়োজনে শাকিল রানা প্রবাসে চলে গেলে স্থানীয় সন্ত্রাসীদের মাধ্যমে জোরপূর্বক জমির মাটি কেটে নিয়ে যায় চৈতী কম্পোজিট।

অভিযোগে বলা হয়, বিগত ০৭ মে ২০২১ইং তারিখ বিকেলে তাদের মালিকানা সম্পত্তিতে লাগানো ৮ টি মালিকানা সাইনবাের্ড থাকা সত্বেও সেসব উচ্ছেদ করে ভেকু গাড়ি দিয়ে জমির মাটি কেটে দখলে নেয়ার চেষ্টা করে। পরে প্রবাসী শাকিল রানার স্বজনরা দখলদারদের বাধা দিতে গেলে তাদেরকে মারধর ও হুমকী ধামকী দেয়। বর্তমানে তার স্ত্রী ও পরিবারের লোকজনের জীবন হুমকীতে রয়েছে বলে অভিযোগে উল্লেখ করেন।

উল্লেখ্য চৈতী গ্রুপ এর আগেও শাকিল রানার সম্পত্তি জোরপুর্বক দখল করে দুষিতপানি নিষ্কাশনের ড্রেন নির্মান করছে বলে অভিযোগ রয়েছে।

এছাড়াও চৈতী গ্রুপের চলমান উন্নয়ন কাজে ছোটশীলমান্দী ও শ্রীনিবাসদী মৌজায় আরো অনেক নিরীহ কৃষকের জমিও জোরপূর্বক দখল করে মাটি কেটে ভরাট কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। জমির প্রকৃতমালিকরা আপত্তি জানালে তাদেরকে অফিসে যোগাযোগ করতে বলেন। পরবর্তীতে ভয়ভীতি দেখিয়ে নামমাত্র মুল্যে জমি বিক্রি করে দিতে বাধ্য করে।

সোনারগাঁও থানার ওসি মোহাম্মদ হাফিজুর রহমান বলেন, অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। তদন্ত চলছে। তদন্ত শেষে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আপনার মতামত কমেন্টস করুন